Krishak Bandhu Status 2024 কৃষক বন্ধু টাকা কবে ঢুকবে।দ্বিতীয় কিস্তির টাকা কবে দিবে চেক লিস্ট 2024

কৃষক বন্ধু টাকা কবে ঢুকবে লিস্ট চেক 2023 How To Krishak Bandhu Status Check 2023

Krishak Bandhu Status 2024 কৃষক বন্ধু টাকা কবে ঢুকবে।দ্বিতীয় কিস্তির টাকা কবে দিবে চেক লিস্ট 2024

কৃষক বন্ধু টাকা ঢুকেছে কিনা 2024, কৃষক বন্ধু status, Krishak Bandhu Status check by Voter ID,Aadhar Card Number, কৃষক বন্ধু আইডি, কৃষক বন্ধু লিস্ট, কৃষক বন্ধু স্ট্যাটাস চেক, কৃষক বন্ধু চেক লিস্ট 2024,কৃষক বন্ধু আইডি নাম্বার চেক, হেল্পলাইন, ওয়েস্ট বেঙ্গল চেক লিস্ট 2024 ,ডেথ বেনিফিট অ্যাপ্লিকেশান ফর্ম, কৃষক বন্ধু প্রকল্পে আবেদন করবেন কীভাবে,প্রয়োজনীয় নথি,কৃষক বন্ধু APP,

কৃষক বন্ধু টাকা কবে ঢুকবে লিস্ট চেক: পশ্চিমবঙ্গ সরকারের “কৃষক বন্ধু” প্রকল্পটি হল কৃষকদের কল্যাণের জন্য ,এটি রাজ্য সরকারের করা একটি অগ্রগতির প্রকল্প বা ফ্ল্যাগশিপ স্কিম। এই প্রকল্পটি হলো একটি গুরুত্বপূর্ণ ও বৃহৎ আকারের প্রকল্প।এই কৃষক বন্ধু (Krishak Bandhu) প্রকল্পটি কৃষি বিভাগ দ্বারা 2019 সালে চালু করা হয়েছিল

Krishak Bandhu প্রকল্পটির অধীনে 17 জুন,2021 সালে কৃষকদের সুবিধা বৃদ্ধি করা হয়। এই প্রকল্পটির পুনঃনামকরণ করা হয় “কৃষক বন্ধু (নতুন)”। এই নতুন প্রকল্পের অধীনে, কৃষকদের আর্থিক অনুদানের বা অর্থনৈতিক সাহায্যের পরিমাণ 5,000/- থেকে বাড়িয়ে 10,000/- টাকা করা হয়।

Content

কৃষক বন্ধু প্রকল্প কী ? Krishak Bandhu Status

“কৃষক বন্ধু” (Krishak Bandhu) প্রকল্পটির মাধ্যমে সরকার, কৃষকদের জন্য বিভিন্ন কৃষির উপকরণ যেমন সার, শস্য বীজ, আরও অন্যান্য উপকরণ ক্রয় করার জন্য আর্থিক সহায়তা দেয়।যদি কোনো কৃষকর অকালমৃত্যু হয়, সেক্ষেত্রে তাদের পরিবারগুলিকে আর্থিকভাবে সাহায্যের মাধ্যমে সামাজিক নিরাপত্তা প্রদান করে থাকে। আবার ফসল ও পশুসম্পদ গুলির জন্য বীমা কভারেজও প্রদান করে থাকে।

এই “কৃষক বন্ধু” (Krishak Bandhu) প্রকল্পে কৃষকদের বছরের দুটি সময় কিস্তি দেওয়া হয় , প্রথম কিস্তি দেওয়া হয় খরিফের সময় এবং দ্বিতীয় কিস্তি দেওয়া হয় রবি মৌসুমে।এই দুটি সমান কিস্তিতে সর্বাধিক 10,000 টাকার আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়। এছাড়া যদি কোনো কৃষকের মৃত্যু হয় তাহলে তাদের পরিবারকে এককালীন 2 লক্ষ টাকার আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়।

সরকারী বাজেট রিপোর্ট অনুযায়ী “কৃষকবন্ধু” প্রকল্পের অধীনে 2022-23 সালে খরিফ মরসুমে 88.79 লক্ষ কৃষককে সর্বমোট 2477.51/- কোটি টাকার সহায়তা করা হয়েছে এবং রবি মৌসুমের ক্ষেত্রে 91.57 লক্ষ কৃষককে সর্বমোট 2554.91/- কোটি টাকা আর্থিক সহায়তা বিতরণ করা হয়েছে।(Krishak Bandhu Status)

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের বিবরণ Krishak Bandhu Status

পশ্চিমবঙ্গ কৃষক বন্ধু (Krishak Bandhu Status) প্রকল্পের সংক্ষিপ্ত বিবরণটি নিচে আলোচনা করা হল-

প্রকল্পের নামকৃষক বন্ধু প্রকল্প (Krishak Bandhu Scheme)
উদ্যোক্তাপশ্চিমবঙ্গ সরকার
প্রকল্প বাজেটপ্রায় 5,000 কোটি টাকা
শুরু হয়েছিল 2019 সাল
দায়িত্ব বিভাগকৃষি বিভাগ
সুবিধাভোগী পশ্চিমবঙ্গের কৃষক
উদ্দেশ্যপশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের কৃষকদের আয় ও সামাজিক নিরাপত্তা প্রদান করা
বয়স সীমাডেথ বেনিফিটের জন্য 18 থেকে 60 বছর বয়স
অনুদানের পরিমাণবার্ষিক 4000/- থেকে সর্বোচ্চ 10,000/- টাকা পর্যন্ত
আবেদন পদ্ধতিঅফলাইনের মাধ্যমে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প বা BDO অফিস
অফিসিয়াল ওয়েবসাইটhttps://krishakbandhu.net/

কৃষক বন্ধু (Krishak Bandhu) প্রকল্পের কয়টি উপাদান?

  • “কৃষক বন্ধু” প্রকল্প (নিশ্চিত আয়) আর অন্যটি হলো
  • “কৃষকবন্ধু” প্রকল্প (মৃত্যু সুবিধা)

 কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা কারা পাবেন ? Krishak Bandhu Status

আপনি যদি কৃষক বন্ধু প্রকল্পের আওতায় নথিভুক্ত করে থেকেন ,তাহলে আপনি এই প্রকল্পের সুবিধা গুলি পাবেন।এই প্রকল্পের কি সুবিধা আছে তা নিচে দেওয়া হলো-

  • কৃষক বন্ধু প্রকল্পের অধীনস্থ প্রত্যক্ষ সুবিধা গুলোর মধ্যে রয়েছে ,চাষের জন্য নির্দিষ্ট পরিমান টাকা আর্থিক সহায়তা করা হয়। বছরে সর্বাধিক 10,000/-টাকা এবং ন্যূনতম 4,000/– টাকা প্রতি বছর খরিফ ও রবি মৌসুমের সময় দুটি সমান কিস্তি দেওয়া হয়।
  • যদি কৃষকের 1 একর বা তার বেশি চাষযোগ্য জমি থাকে তাহলে কৃষকরা বছরে 10,000/- টাকার সাহায্যে অধিকারী।আর যদি কোনো কৃষকের 1 একরের কম চাষযোগ্য জমি থাকে তাহলে কৃষকরা ন্যূনতম 4,000/- টাকা সহায়তা পাবেন।
  • কৃষক বন্ধু প্রকল্পের “কৃষক বন্ধু ডেথ বেনিফিট” (Krishok Bondhu Death Benefit) উপাদানের অধীনস্থ 18 বছর থেকে 60 বছর বয়সের মধ্যে হলে, কৃষকের মৃত্যুর জন্য রাজ্য সরকার মৃত্যের পরিবারের সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য এককালীন নিহতের পরিবারকে দুই লাখ টাকা দেবে। 
  • Krishok Bondhu Prokolpo (কৃষক বন্ধু প্রকল্প) র আওতায় নিবন্ধিত কৃষকদের খাদ্য সরবরাহ বিভাগ দ্বারা বাস্তবায়িত রাজ্য সরকারের থেকে ধান সংগ্রহ প্রকল্পে অধিকার পায়।ইতিমধ্যে রাজ্য সরকার কৃষকবন্ধু প্রকল্পের আওতায় নিবন্ধিত কৃষকদের কাছে অন্যান্য কৃষি -কেন্দ্রিক সরকারি প্রকল্পের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করার পরিকল্পনা করছে।
  • Krishok Bondhu Prokolpo র আওতায় সকল কৃষকদের 5000 টাকার ফসল বীমা দেওয়া হয় মোট দুটি কিস্তিতে। এই কৃষক বন্ধু প্রকল্পের জন্য সরকার 3000 কোটি টাকার বাজেট নির্ধারণ করছে।
  • কৃষক বন্ধু প্রকল্পর আওতায় নিবন্ধিত কৃষকদের মৃত্যুর 15 দিন পর পর্যন্ত বীমা কভার প্রদান করা হবে।এছাড়াও পশ্চিমবঙ্গের কৃষক বন্ধু প্রকল্পের সমস্ত সুবিধাভোগীদের জন্য শস্য বীমার প্রিমিয়াম উপলব্ধ করবে।
  • কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা সরাসরি সুবিধাভোগীদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে উপলব্ধ করা হবে ।কৃষক বন্ধু প্রকল্পের ফসল বীমার প্রথম কিস্তি জুন মাসে উপলব্ধ করা হবে। এই প্রকল্পের আওতায় অধীনস্থ, ফসল বীমার দ্বিতীয় কিস্তির টাকা পরিমাণ নভেম্বর মাসে উপলব্ধ করা হবে।

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের উদ্দেশ্য

পশ্চিমবঙ্গ মূলত একটি কৃষি প্রধান রাজ্য।পশ্চিমবঙ্গে কৃষিকাজের ক্ষেত্রে শস্য বীজ থেকে শুরু করে, বেশি উন্নত মানের সার ছাড়াও চাষের আরও অন্যান্য উপকরণ মিশিয়ে তা যথেষ্ট ব্যয় সাপেক্ষ হয়ে পরে।আবার কৃষকেরাও সবসময় লাভের মুখ দেখতে পায় না। তাই প্রতি বছর কৃষকদের দুর্দশার কথা কম বেশী আমরা সকলেরই জানি।

রাজ্য সরকার তাই কৃষকদের কৃষিকাজে আরো উৎসাহ দিতে ও কৃষক পরিবারগুলিকে আয় ও সামাজিক নিরাপত্তা প্রদানের জন্যই এই “কৃষক বন্ধু” (Krishak Bandhu) প্রকল্প চালু করেছে।

কৃষকদের জমির পরিমানের উপর ভিত্তি করে তাদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়। এছাড়াও কৃষকের মৃত্যুর ক্ষেত্রেও তার পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়।এখনো পর্যন্ত “কৃষক বন্ধু” (Krishak Bandhu) প্রকল্পের মাধ্যমে রাজ্যের প্রায় 90 লক্ষ কৃষক উপকৃত হয়েছেন।

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের বৈশিষ্ট্য

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের বৈশিষ্টগুলি আলোচনা করা হল-

  • কৃষক বন্ধু প্রকল্পের বিভিন্ন সুবিধাগুলি পাবে শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গের কৃষক ও তাদের পরিবার।
  • কোনো কৃষকের যদি 1 একর বা তার বেশি চাষ যোগ্য জমি থাকে সেক্ষেত্রে কৃষকরা বার্ষিক 10,000/- টাকা আর্থিক সাহায্যে পাবেন।
  • কোনো কৃষকের যদি 1 একরের কম চাষযোগ্য জমি থাকে সেক্ষেত্রে কৃষকরা বছর প্রতি 4,000/- টাকা আর্থিক সাহায্যে পাবেন।
  • এই আর্থিক সাহায্যে দুটি সমান কিস্তিতে প্রদান করা হবে, প্রথমে খরিফের সময় ও দ্বিতীয়টি রবি মৌসুমে দেওয়া হয়।
  • কৃষক বন্ধু প্রকল্পে কৃষকের যদি 18 থেকে 60 বছর বয়সী মৃত্যু হয় ,সেক্ষেত্রে তার বৈধ উত্তরাধিকারী দুই লক্ষ টাকার অনুদান পাবেন।

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের যোগ্যতার মানদণ্ড

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের আবেদন করার জন্য ,আবেদন প্রার্থীরদের যোগ্যতাগুলি থাকা প্রয়োজন তা হলো নিম্নরূপ –

  • প্রথমত কৃষক বন্ধু প্রকল্পের আবেদন করার জন্য আবেদনকারীকে একজন কৃষক হতে হবে।
  • আবেদনকারী অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
  • যে সব কৃষকদের চাষ যোগ্য জমি আছে বা Record of Rights (RoR), পাট্টা অথবা ফরেস্ট পাট্টা আছে। এই প্রকল্পের যোগ্য হলেন নথিভুক্ত ভাগচাষিরা।

কিভাবে কৃষক বন্ধু স্ট্যাটাস চেক করবেন (How to Krishok Bandhu Status Check)

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা আপনি পেয়েছেন কিনা সেটি জানার জন্য আপনি নিম্নলিখিত পদ্ধতি অনুসরণ করে সরকারী পোর্টাল থেকে সহজেই Krishak Bandhu Status যাচাই করে নিতে পারবেন-

  • (Krishok Bandhu Status Checkকৃষক বন্ধু status Check করার জন্য, প্রথমে আপনাকে এই প্রকল্পের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ভিজিট করতে হবে।
  • ওয়েবসাইটের হোম পেজটি আপনার সামনে ওপেন হবে তারপরে ,
  • আপনাকে হোম পেজে, ‘Login ‘ অপশনে ক্লিক করতে হবে।
  • এর পরে, আপনাকে ‘Login ‘ বিবরণ দিতে হবে।
  • এবারে আপনাকে check application form status অপশনে ক্লিক করতে হবে।
  • ক্লিক করার পর আপনার সামনে Krishak Bandhu Status ওপেন হবে ,

কৃষক বন্ধু টাকা ঢুকেছে কিনা চেক ?(Krishak Bandhu Status Check)

কৃষক বন্ধু টাকা কবে ঢুকবে বা কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা আপনি পেয়েছেন কিনা সেটি জানার জন্য আপনি আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ব্যালেন্স চেক করার মাধ্যমে দেখে নিতে পারেন।

এছাড়া আপনি নিম্নলিখিত পদ্ধতি অনুসরণ করে সরকারী পোর্টাল থেকে কৃষক বন্ধু টাকা কবে ঢুকবে বা টাকা পেয়েছেন কি তা খুব সহজেই Krishak Bandhu Status যাচাই করে নিতে পারবেন-

  • প্রথমে আপনাকে কৃষক বন্ধু প্রকল্পের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট -এ প্রবেশ করতে হবে।
  • তারপরে ওয়েবসাইট পোর্টালের হোম পেজ থেকে আপনাকে ‘নথিভুক্ত কৃষকের তথ্য’-তে ক্লিক করতে হবে।
  • এরপরে আপনি এখানে Select Option থেকে আপনার ভোটার কার্ড বা আধার কার্ড বা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর বা কৃষক বন্ধু আইডি নম্বর বা মোবাইল নম্বর লিখতে হবে , ক্যাপচা পূরণ করে Search অপশনে ক্লিক করলে আপনার Krishak Bandhu Status আপনি দেখতে পারবেন।

কৃষক বন্ধু চেক লিস্ট (Krishak Bandhu)

  • প্রথমে আপনাকে মাটির কথা ওয়েব সাইটে প্রবেশ করতে হবে।
  • তারপর সেখানে কৃষক বন্ধু প্রকল্প অপশনটিতে ক্লিক করবেন।
  • তারপর আপনার সামনে যে নতুন পেজ ওপেন হবে , সেখানে নথিভুক্ত কৃষকের তথ্য  তে ক্লিক করতে হবে.
  • ক্লিক করার পর আপনার সামনে নতুন পেজ আসবে সেখানে আপনার ভোটার কার্ড বা Aadhar Card, বা Mobile No ফিলাপ করতে হবে। তারপরে আপনি i am not a robot এ ক্লিক করে Search অপশনে ক্লিক করবেন।
  • তারপরে আপনি আপনার কৃষক বন্ধু প্রকল্প ডিটেইলস দেখতে পপাবেন, যদি লেখা থেকে transaction succesful এবং status approved তাহলে আপনার একাউন্টে প্রথম কিস্তির টাকা ঢুকেছে এইভাবে আপনি Krishak Bandhu Status জানতে পারবেন যে কৃষক বন্ধু টাকা কবে ঢুকবে , প্রথম কিস্তির টাকা ঢুকেছে কি না

কৃষক বন্ধু দ্বিতীয় কিস্তির টাকা কবে ঢুকবে ? Krishak Bandhu Next Instalment 2024?

Krishok Bandhu প্রকল্পের টাকা নতুন ও পুরাতন উভয়েকে এক সাথে দিয়ে থাকেন সরকার । কিন্তু আগে দেখা গিয়েছে যে সরকার ক্যাম্পের পর নতুন কৃষকদের টাকা দিয়েছেন । কিন্তু এবারে Krishak Bandhu Next Instalment 2024 কি হবে তা কিছু জানা নেয় ?

কৃষক বন্ধু টাকা কবে দিবে? Krishak Bandhu Payment Date 

Krishak Bandhu Payment Date : কৃষক বন্ধু প্রকল্পে পরবর্তী কিস্তির টাকা কবে দিবে মমতা সরকার? দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে অসংখ্য কৃষকদের নাম নথিভুক্ত হয়েছে কৃষক বন্ধু প্রকল্পে । কিন্তু যারা পুরাতন কৃষক আছে তাদের প্রকল্পের 2000 বা 5000 টাকা আগে দিয়ে দেওয়া হয়েছে।

কৃষক বন্ধু আইডি নাম্বার চেক

 কৃষক বন্ধু প্রকল্পে প্রত্যেক আবেদনকারীর একটি সতন্ত্র বা নিজস্ব আইডি তৈরি হয়। কৃষক বন্ধু আইডি চেক ধাপগুলি নিচে দেওয়া হল –

  • প্রথমে আপনাকে কৃষকবন্ধু প্রকল্পের অফিসিয়াল পোর্টাল krishakbandhu.net –এ প্রবেশ করে ‘নথিভুক্ত কৃষকের তথ্য’ অপশনে ক্লিক করতে হবে।
  • তারপরে আপনার ভোটার আইডি কার্ড বা আধার কার্ড বা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর বা মোবাইল নম্বর লিখে এবং ক্যাপচা কোড পূরণ করে ‘Search’-এ ক্লিক করতে হবে।
  • তাহলেই আপনি নিচে আপনার ‘Assured Income and Death Benefit ID’ বা AKD ID এবং ‘কৃষক বন্ধু আইডি’ সহ সম্পূর্ণ Krishak Bandhu Status দেখতে পাবেন।

কৃষক বন্ধু লিস্ট

আপনি কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা পেয়েছেন কিনা তা আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ব্যালেন্স চেক করার মাধ্যমে আপনি জেনে নিতে পারেন।

এছাড়া নিম্নলিখিত পদ্ধতিতে, সরকারী পোর্টাল থেকেও টাকা ঢুকেছে কিনা তার জন্য Krishak Bandhu Status চেক করুন।

  • পোর্টালের হোম পেজ থেকে আপনাকে ‘নথিভুক্ত কৃষকের তথ্য’-তে ক্লিক করতে হবে।
  • এখানে আপনি আপনার ভোটার কার্ড, আধার কার্ড, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর, কৃষক বন্ধু আইডি বা মোবাইল নম্বর লিখে এবং ক্যাপচা পূরণ করে সার্চ করলেই আপনার Krishak Bandhu Status আপনি নিচে দেখে নিতে পারবেন।

কৃষক বন্ধু চেক লিস্ট 2023 ওয়েস্ট বেঙ্গল (Kishore Bondhu List West Bengal)

কৃষক বন্ধু চেক লিস্ট 2023 ওয়েস্ট বেঙ্গল: 2019 সালে জানুয়ারি মাসে কৃষি বিভাগ,পশ্চিমবঙ্গ সরকার Kisok Bondhu Prokolpo চালু করেছে , যার মূল উদ্দেশ্য ছিল পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত কৃষকদের কৃষি কাজের জন্য আর্থিক ভাবে সাহায্য প্রদান করা ও সেই সাথে কৃষকদের অকালমৃত্যুর ক্ষেত্রে তাদের পরিবারগুলিকে সামাজিক নিরাপত্তা প্রদান করা ও আর্থিক সাহায্য করা।

সম্প্রতি সময়ে এই প্রকল্পটি পুনঃনির্মাণ করা হয়েছে। “কৃষক বন্ধু (নতুন)” হিসাবে পুনঃনামকরণ করা হয়েছে। এই নতুন প্রকল্পটি পশ্চিমবঙ্গের মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 17 জুন 2021-এ চালু করেছিলেন।

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের 2015 সালের বাজেটের অধীনে 2015 সালের 9ই মে তারিখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর দ্বারা ঘোষণা করা হয়েছিল, এই ধরনের আরও কিছু প্রকল্প আছে যার মধ্যে রয়েছে অটল পেনশন যোজনা, প্রধানমন্ত্রী সুরক্ষা বীমা যোজনা, প্রধানমন্ত্রী জীবন জ্যোতি যোজনা, ইত্যাদি ।(Krishak Bandhu Status)

পশ্চিমবঙ্গ জেলাভিত্তিক কৃষক বন্ধু টাকা কবে দিবে? (krishak bandhu status check west bengal)

কৃষক বন্ধু প্রকল্প পশ্চিমবঙ্গের জেলাভিত্তিক লিস্ট চেক (Krishok Bondhu Name List District Wise) পশ্চিমবঙ্গের কৃষক বন্ধু প্রকল্প লিস্ট – বর্ধমান,বাঁকুড়া, বীরভূম, কোচবিহার, হুগলি, হাওড়া, দক্ষিণ দিনাজপুর, দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কলকাতা, মালদা, মুর্শিদাবাদ,ঝাড়গ্রাম, নদীয়া, উত্তর ২৪ পরগনা, পশ্চিম মেদিনীপুর, পূর্ব মেদিনীপুর, পুরুলিয়া, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ পরগনা, আলিপুরদুয়ার, কালিম্পং, পশ্চিম বর্ধমান।(Krishak Bandhu Status )

ভারতের অন্যতম জনবহুল একটি রাজ্য হলো পশ্চিমবঙ্গ। সব থেকে বেশি সংখ্যক বাসিন্দা কৃষি ও সংশ্লিষ্ট কিছু কাজের উপর নির্ভরশীল। অর্থাৎ পশ্চিমবঙ্গ একটি কৃষি প্রধান রাজ্য। রাজ্যটির মোট GDP এর 27 % আসে কৃষিক্ষেত্র থেকে। পশ্চিমবঙ্গের প্রধান কৃষি ফসলগুলির মধ্যে আছে ধান, আলু,পাট,গম,চা,আখ প্রভৃতি । সেই কারণেই পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার কৃষক পরিবারের ক্ষমতা উন্নয়নের জন্য এই প্রকল্প চালু করেছে।(Krishak Bandhu Status )

 ভোটার আইডি, আধার কার্ড বা মোবাইল নম্বর দিয়ে কৃষকবন্ধুর স্ট্যাটাস চেক করুন (Krishak Bandhu Status check Voter ID,aadhar card,)

প্রত্যেক কৃষকবন্ধু প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত কৃষক ভোটার আইডি কার্ড বা আধার কার্ড নম্বর বা মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে তাদের কৃষকবন্ধু প্রকল্পের স্ট্যাটাস চেক করতে পারেন। কৃষকবন্ধু স্থিতি কিভাবে চেক করবেন? প্রতিটি ধাপে ধাপে নীচে দেওয়া হল

  • প্রথমে আপনাকে কৃষকবন্ধু প্রকল্পের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট krishakbandhu.net প্রবেশ করতে হবে।
  • কৃষকবন্ধু ওয়েবসাইট খোলার পরে আপনি “ নথি কৃষকের তথ্য ” এই অপশনে ক্লিক করুন।
  • এখন একটি নতুন মে উইন্ডো ওপেন হবে, সেখানে  বিকল্প নির্বাচন করুন – ভোটার কার্ড, আধার কার্ড, ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্ট নম্বর, কেবিআইডি বা মোবাইল নম্বর করবেন।
  • তারপরে enter দিয়ে ID Card Number লিখতে হবে। 
  • তারপরে আপনি  I’m not a robot এই অপশনটি ক্লিক করুন।
  • তারপরে search অপশনটি ক্লিক করুন।
  • এখন আপনি আপনার Krishak Bandhu Status দেখতে পাবেন।

কিভাবে Krishok bandhu net এর এজেন্ট লগইন করবে (How to Agent Login By Krishok Bandhu.net)

  • কৃষক বন্ধু প্রকল্পের এজেন্ট লগইন করার জন্য প্রথমে আপনাকে krishok bandhu.net ওয়েবসাইটে যেতে হবে।
  • তারপর হোম পেজে আপনাকে ‘কৃষকবন্ধু সম্পর্কে’ অপশনে ক্লিক করতে হবে।
  • পরবর্তী পেজে, আপনাকে ‘এজেন্ট লগইন‘ অপশনটি নির্বাচন করতে হবে।
  • এর পরে, আপনাকে আপনার কৃষক বন্ধু username এবং Password দিতে হবে।
  • এবার আপনাকে লগইন এ ক্লিক করতে হবে।
  • এখানে ক্লিক করার পর আপনি Agent Login হবেন

কৃষক বন্ধু প্রকল্প আবেদনের প্রয়োজনীয় নথি

  • চাষের জমির সর্বশেষ RoR/ RoR বর্গা/পাট্টা রেকর্ড/বন পাট্টার রেকর্ড,
  • আবেদনকারীর আধার কার্ড,
  • আবেদনকারীর ভোটার আইডি কার্ড (বাধ্যতামূলক)
  • ব্যাঙ্ক পাস বইয়ের প্রথম পৃষ্ঠা বা বাতিল চেক,
  • বৈধ মোবাইল নম্বর,
  • রঙিন পাসপোর্ট সাইজ ছবি,
  • জমির মালিক না হলে সেক্ষেত্রে চাষযোগ্য জমির স্ব-ঘোষণাপত্র এবং দলিল লাগবে।
  • ওয়ারিসান সার্টিফিকেট লাগবে।

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের (ডেথ বেনিফিট) জন্য প্রয়োজনীয় নথি

  • মৃত কৃষকের ফটোকপি/ নথিভুক্ত ভাগচাষী
  • ভোটার আইডি কার্ড
  • আধার কার্ড
  • প্যান কার্ড
  • পাসপোর্ট সাইজের ছবি
  • BDO থেকে যোগ্য আবেদনকারীর শংসাপত্র
  • মৃত কৃষক/ নথিভুক্ত ভাগচাষীর মৃত্যু শংসাপত্রের ফটোকপি
  • মৃত কৃষকের ROR/ নথিভুক্ত ভাগচাষী।

ডেথ বেনিফিট অ্যাপ্লিকেশান ফর্ম কীভাবে ডাউনলোড করবেন | Krishak bandhu death benefit form bengali pdf

  • Download করার পরে আপনি ফর্মটির একটি প্রিন্ট আউট বের করে নেবেন।
  • তারপর এই ফর্মে জিজ্ঞাসা করা সমস্ত বিবরণ সঠিক তথ্য দিয়ে পূরণ করতে হবে।
  • এই ফর্মের সাথে সমস্ত ডকুমেন্টস যুক্ত করতে হবে।
  • তারপর এই ফর্মটি ডকুমেন্টস সহ আপনার জেলার ব্লকের সহকারী কৃষি পরিচালকের কাছে গিয়ে জমা দিতে হবে।

কীভাবে কৃষক বন্ধু ফরম ফিলাপ করবেন ?

কৃষক বন্ধু প্রকল্পে নাম নথিভুক্ত করার জন্য বর্তমানে কৃষক বন্ধু আবেদনের ফর্ম ছাড়াও আরও দুটি ফর্ম পূরণ করতে হবে। যেগুলি আপনি এর অফিসিয়াল সাইট থেকে সহজেই ডাউনলোড করতে পারেন অথবা চাইলে আপনি দুয়ারে সরকার ক্যাম্প বা BDO Office থেকেও ফর্ম সংগ্রহ করতে পারবেন।

আপনি যদি কৃষক বন্ধু প্রকল্পে আবেদন করতে চান তাহলে বর্তমানে এই প্রকল্পের আবেদন শুধুমাত্র অফলাইনেই করা সম্ভব। কীভাবে আবেদন করবেন তা নিচে আলোচনা করা হল-

  • অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে অনলাইনে ফর্মগুলি ডাউনলোড করার জন্য আপনাকে অফিসিয়াল ওয়েবসাইট krishakbandhu.net -এ গিয়ে “আদেশ স্মারকলিপি এবং বিজ্ঞপ্তি” তে যেতে হবে ।
  • আপনি সরাসরিসংশোধিত বাংলা KB(N) সংযোজন এবং ফর্ম ১৬_১২_২০২১’ বা ‘Revised English KB(N) Annexure & Form16_12_2021ক্লিক করতে পারেন।
  • এই ফর্মগুলি সঠিক তথ্য দিয়ে পূরণ করে, উপরে উল্লিখিত প্রয়োজনীয় নথিপত্র গুলি সংযুক্ত করে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প বা BDO Office জমা দিতে হবে। 
  • ফর্ম জমা দেওয়া সময় ফর্মের ‘প্রাপ্তি স্বীকার’ অংশটি আপনাকে দেওয়া হবে।

 ডেথ বেনিফিট অ্যাপ্লিকেশান ফর্ম কীভাবে ডাউনলোড করবেন | How to Download Death Benefit Application Form

কৃষক বন্ধু লিস্ট পিডিএফ ডাউনলোড করুন – কৃষক বন্ধু লিস্ট 2023 কিভাবে দেখব

Krishok Bondhu প্রকল্পের পিডিএফ ফর্ম ডাউনলোড করতে হলে আপনি এখান থেকে ক্লিক করে ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

কৃষক বন্ধু প্রকল্প হেল্পলাইন

  • সরাসরি হেল্পলাইন নম্বরঃ 8336957370/ 6291720406 (সকাল 10 টা থেকে সন্ধ্যা 6 টা পর্যন্ত)
  • ই-মেলঃ [email protected]

Krishak Bandhu Status কৃষক বন্ধু দ্বিতীয় কিস্তির টাকা কবে দিবে FAQ

Q. কিভাবে কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা দেওয়া হয়?

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের সুবিধাভোগীদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ‘Direct Benefit Transfer’ বা DBT-এর মাধ্যমে টাকা দেওয়া হয়.

Q. কারা কৃষক বন্ধু প্রকল্প আবেদনের যোগ্য?

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের যে সব কৃষকের নিজস্ব চাষের জমি আছে বা নথিভুক্ত ভাগচাষিরা, এছাড়া Record of Rights, পাট্টা বা ফরেস্ট পাট্টা আছে তারাই হলেন এই প্রকল্পের যোগ্য।

Q. কিভাবে কৃষক বন্ধু স্ট্যাটাস চেক করবেন ?

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের অনলাইনে Krishak Bandhu Status চেক করার জন্য আপনাকে অফিসিয়াল krishakbandhu.net যেতে হবে ও ‘নথিভুক্ত কৃষকের তথ্য’ তে ক্লিক করতে হবে।আপনার আধার, ভোটার, মোবাইল নম্বর দিয়ে সার্চ করে আপনি স্ট্যাটাসটি দেখতে পারবেন।

Q. কৃষক বন্ধু প্রকল্পে কত টাকা পাওয়া যায়?

কৃষক বন্ধু নতুন প্রকল্পের অধীনে নথিভুক্ত প্রত্যেক কৃষকে বার্ষিক দশ হাজার টাকা সরকারী অনুদান পাবেন ও এক একরের কম জমির ক্ষেত্রে কৃষকরা বার্ষিক চার হাজার টাকা পাবেন।

আরও পড়ুন- SVMCM Utilization Certificate 2023-24: স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপে লাগছে নতুন সার্টিফিকেট।New Update

 WBPSC ক্লার্কশিপ নিয়োগ 2023 মাধ্যমিক পাসে আবেদন করুন।(WBPSC Clerkship Recruitment 2023)

Aikyashree scholarship 2023 টাকা কবে ঢুকবে, ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ শেষ তারিখ কবে।

ISI Kolkata Recruitment 2023: লাইব্রেরীতে কর্মী নিয়োগ,আবেদন করুন।

Voter ID Card Apply Online 2023: নতুন ভোটার আইডি কার্ড অনলাইনে আবেদন করার নিয়ম 

WB Hospital Recruitment 2023: জেলা হাসপাতালে চাকরি, ইন্টারভিউ মাধ্যমে কর্মী নিয়োগ।

Postal Group C Recruitment 2023: 1900 শূন্যপদে ডাক বিভাগে কর্মী নিয়োগ,কিভাবে আবেদন করবেন?

Health Dept Group B-C Recruitment 2023: স্বাস্থ্যপরিবার দপ্তরে বিভিন্ন পদে চাকরি, মাধ্যমিক পাশে আবেদন করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *